1. admin@sathikkhabor.com : JbSknUo :
  2. 2015khokanctg@gmail.com : Rajib Khokan : Rajib Khokan
  3. ratanbarua67@gmail.com : Ratan Barua : Ratan Barua
  4. baruasangita145@gmail.com : Sangita Barua : Sangita Barua
বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০৪:৪৬ পূর্বাহ্ন

ক্ষেতে আমন ধান বোয়ালখালীতে ঝড়ের আভাসে দুশ্চিন্তায় কৃষক

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ১৭ নভেম্বর, ২০২৩
  • ১৩০ Time View

দেবাশীষ বড়ুয়া রাজু, বোয়ালখালী চট্টগ্রাম : চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে সবেমাত্র আমন ধান কাটা শুরু হয়েছে। এরমধ্যে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়ের আভাস দুশ্চিন্তায় ফেলেছে কৃষকদের।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, ঘূর্ণিঝড়টি বাংলাদেশ উপকূলে আঘাত হানতে পারে। এর প্রভাবে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকে আকাশ মেঘলা রয়েছে, হচ্ছে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি।

কৃষকেরা জানান, ক্ষেতের বেশ কিছু ধান এখনো অপরিপক্ব। ঝড়–বৃষ্টি হলে এসব ধান নষ্ট হয়ে যাবে। এ অবস্থায় ফসলের ক্ষেতে থাকা আধা পাকা আমন ধান নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন বোয়ালখালী উপজেলার কৃষকেরা।

সরেজমিনে উপজেলার আমুচিয়া ইউনিয়নের বগাচড়া বিল, হদের বিল, শ্রীপুর খরণদ্বীপ ইউনিয়নের জৈষ্টপুরা এলাকার সূর্য ব্রত বিল, বড়ুয়া পাড়া বিলসহ সারোয়াতলি ও আহল্লা করলডেঙ্গা ইউনিয়নের কয়েকটি বিল ঘুরে দেখা যায়, বিলের বিস্তৃর্ণ কৃষি মাঠ জুড়ে সবুজ আর সোনালি আকার ধারণ করেছে আমন ধান।

আমুচিয়া ইউনিয়নের কৃষক মো.আবদুল জলিল ৪০ একর জমিতে আমন ধানের চাষ করেছেন। আমন সবে মাত্র কাটা শুরু করেছেন তিনি। তবে বেশির ভাগ জমির ধান এখন আধা পাকা। কৃষক আবদুল জলিল বলেন, ‘ আমন ঠিক সময়ে রোপণ করতে পারিনি। বন্যায় বীজতলা নষ্ট হয়ে যাওয়ায় ক্ষতির মুখে পড়েছি। অন্যজনের কাছ থেকে চারা কিনতে হয়েছে। এখন ধান ঘরে তোলার সময় ঝড় বাতাস হলে পথে বসা ছাড়া উপায় থাকবে না।’

জৈষ্ঠপুরা এলাকার কৃষক মোহাম্মদ আলম বলেন, ৬০ শতক জমির আমন ধান কেটে পালা মেরেছে। এরই মধ্যে বৃষ্টি শুরু হয়েছে। দুই এক দিনের মধ্যে বৃষ্টি বন্ধ না হলে সবগুলো নষ্ট হয়ে যাবে।

উপজেলা কৃষি অফিসার মো. আতিক উল্লাহ বলেন, ‘বোয়ালখালীতে আমন ধান কাটা শুরু হয়েছে। তবে এখনো সব এলাকায় ধান পাকেনি। এ পর্যন্ত ৫-৭ হেক্টর জমির ধান কাটা হয়েছে। এবার আমনের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৪ হাজার ৮ শত ৫০ হেক্টর। তবে আবাদ হয়েছে ৪ হাজার ৭ শত ৫০ হেক্টর জমিতে। সাম্প্রতিক অতিভারী বর্ষণে বন্যার পানি নামতে দেরি হওয়ার পাশাপাশি কৃষকের বীজতলা নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। ফলে আবাদ কিছুটা কম হয়েছে।’

এবার আমনের বাম্পার ফলন হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ক্ষেতে ৮০ শতাংশ ধান পেকে গেলে কেটে ফেলার পরামর্শ দেয়া হয়েছে কৃষকদের।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019
Design Customized By:Our IT Provider